প্রকাশঃ Sun, Feb 23, 2020 7:02 PM
আপডেটঃ Sun, May 31, 2020 1:38 PM


অংকিত শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাতে অতৃপ্ত শিশু ওঙ্কার গভীর রাতে ফুল হাতে শহীদ মিনারে

অনলাইন ডেস্ক

অংকিত শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাতে অতৃপ্ত শিশু ওঙ্কার গভীর রাতে ফুল হাতে শহীদ মিনারে

ইমাম বিমান, ঝালকাঠি থেকে :

 

মহান একুশে ফেব্রুয়ারী ও আন্তর্জাতি মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে কাগজের উপর নিজ হাতের অংকিত শহীদ মিনার সেই সাথে বাবার কিনে দেয়া প্লাষ্টিক ব্লক (খেলনা) দিয়ে নিজের হাতের তৈরী শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে অতৃপ্ত শিশু অঙ্কার। তাই মনের তৃপ্তি ও ইচ্ছা পুরনে বাবার সাথে গভীর রাতে শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে ঝালকাঠি জেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ছুটে এসেছে প্রতিভাবান ক্ষুদে শিক্ষার্থী অঙ্কার। ঝালকাঠি জেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে একুশের প্রথম প্রহরে জেলার সকল সরকারি বেসরকারী কর্মকর্তাদের শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে ফুল হাতে অপেক্ষমান কেজি ওয়ান পড়ুয়া ক্ষুদে শিক্ষার্থী অঙ্কার শহীদ মিনারে শহীদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়েছে। ২১শের প্রথম প্রহরে অস্কারের দাড়িয়ে থাকাই বাংলাদেশের ভাষা শহীদদের আবারো স্বরন করিয়ে দেয় " আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙ্গানো একুশে ফেব্রুয়ারী, আমি কি ভুলিতে পারি  "। 

 

ক্ষুদে শিক্ষার্থী অঙ্কারের চাকুরিজীবী বাবা বিশ্বজিৎ সাহা বিষ্ণুর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি জানান, এবারের অমর একুশে ফেব্রুয়ারী ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন করার জন্য আমাকে ফুল নিয়ে বাসায় আসতে বলে। আমি ফুল নিয়ে আসার পর তার নিজের হাতে শহীদ মিনারের ছবি অংক করে তার সামনে ফুল দিয়ে পালন করার চেষ্টা করলে সেখানে তার মন বসেনা। পরে প্লাস্টিক ব্লক দিয়ে আবার নিজেই শহীদ মিনার তৈরি করে সেখানেও ফুল দিয়ে মাতৃভাষা দিবস পালন করে তাতেও যখন তার কাছে দিবসটি পালনে অসম্পূর্ন থাকছে মনে হলে সে আমার বায়না করে বসলো সে শহীদ মিনারে যাবে। পরে একপ্রকার তার ইচ্ছা শক্তিকে বাস্তবে রুপ দিতে গভীর রাতে ফুলের তোড়া কিনে তাকে নিয়ে ঝালকাঠি জেলার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে যাই। এবং সেখানে সে একুশের প্রথম প্রহরেই শহীদ মিনারে ফুল দিয়ে শহীদদের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়েছে।

 

অঙ্কারের ছোট বেলা থেকেই নতুন কিছু আবিস্কার করার ইচ্ছা জাগে। আমি তার ইচ্ছা পুরনের চেষ্টা করে যাচ্ছি। অঙ্কারকে স্কুলে ভর্তি করার পরই তার মধ্যে নতুন কিছু আবিস্কার করার ইচ্ছা পরিলক্ষিত হয়। আমি তাকে বিভিন্ন খেলনা সামগ্রী কিনে দেই আর সেগুলো দিয়েই সে ইঞ্জিনিয়ারিং খেলনা বিল্ডিং, ব্রীজ, বানাতে শুরু করে। টেলিভিশনে মুক্তিযুদ্ধের নাটিকা দেখে আমাকে তার সঙ্গী করে আর্মি, বিজিবি, বন্ধুক দিয়ে মুক্তিযুদ্ধা খেলা খেলে।লেখাপড়ায় কোন ভাবে কমতি নেই, লেখা পড়ার পাশাপাশি সে চিত্রাংকন পছন্দ করে। গত ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯ বিজয় দিবস উপলক্ষে ঝালকাঠি পাবিলিক লাইব্রেরী অনুষ্ঠিত চিত্রাংকন প্রতিযোগীতায় ( ক গ্রুফে ) ১ম স্থান অধিকার করেছে। এবার আব্দুল ওহাব গাজী শিশু বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত বার্ষিক ক্রীড়া, সাহিত্য  ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠানে অংশ গ্রহন পূর্বক প্রতিযোগিতায় পাঁচ ক্যাটাগরিতে পুরুস্কার জয়লাভ করেছে। একই সাথে অনুষ্ঠানের র‍্যাফেল ড্র তে প্রথম পুরুস্কার ২৪ ইঞ্চি এল ই ডি কালার টিভি (সিঙ্গার) পেয়ে র‍্যাফেল ড্র বিজয়ী হয়েছে। এসব কিছুর অবদান অঙ্কারের মায়ের। আমি  কর্মস্থলে থাকায় অঙ্কারকে বেশি সময় দিতে না পারলেও তার মা তাকে নিয়ে অনেক কষ্ট করার কারনেই অঙ্কারের বুদ্ধী বিকাশে সহায়তা হচ্ছে।

 


ক্যাটেগরিঃ দেশগ্রাম,
ট্যাগঃ অংকিত শহীদ মিনারে শ্রদ্ধা জানাতে অতৃপ্ত শিশু ওঙ্কার গভীর রাতে ফুল হাতে শহীদ মিনারে
বিভাগঃ বরিশাল
জেলাঃ ঝালকাঠি
ঢাকা মেট্রো নিউজ


আরো পড়ুন